Tuesday, 17 September 2013

রোগ নয়, রোগের ভীতি :হাইপোকন্ড্রিয়াসিস



পাশের বাড়ির ভদ্রলোকের হার্ট অ্যাটাক হয়েছে, শুনে অমনি বুকের বাঁ পাশে ব্যথা শুরু হলো। ছুটে গেলেন হূদেরাগ বিশেষজ্ঞের কাছে।ইসিজি, ইকো, ইটিটি কত কিছু। শারীরিক ও নানা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে চিকিৎসক জানালেন, আপনার কোনো হূদেরাগ নেই। বিশ্বাস হলো না। একের পর এক চিকিৎসক পাল্টে যাচ্ছেন, একই পরীক্ষা একাধিকবার করালেন;কোনো বারই রোগ ধরা পড়ছে না। কিন্তু ধারণা থেকে সরে আসছেন না আপনি। 

আবার ধরা যাক, পত্রিকায় পড়েছেন ইদানীং স্তন ক্যানসারের প্রকোপ বেড়েছে। সঙ্গে সঙ্গে আপনার মনে হলো সত্যি স্তনে বোধ হয় একটা চাকা আছে। চিকিৎসক দেখালেন, ম্যামোগ্রাফি করালেন। কিছু নেই। কিন্তু চাকাটা যে
রয়ে গেছে বলে মনে হচ্ছে! আতঙ্ক যাচ্ছে না কিছুতেই।

আসলে এটা একধরনের মানসিক রোগ, যার নাম হাইপোকন্ড্রিয়াসিস। এ রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিরা শারীরিক ছোট বা উপেক্ষণীয় যেকোনো সমস্যাকেই বড় করে দেখেন এবং নিজেদের গুরুতর কোনো রোগে আক্রান্ত বলে বিশ্বাস করেন। পত্রিকার স্বাস্থ্য পাতায় প্রকাশিত কোনো রোগের বিবরণের সঙ্গে নিজের কল্পিত উপসর্গ মিলিয়ে নিজেকে রোগী বানিয়ে ফেলেন। পরীক্ষা-নিরীক্ষায় কোনো রোগ ধরা পড়েনা, কিন্তু রোগ নেই এ কথা তাঁরা মানতে চান না বলে বারবার চিকিৎসক দেখান।একে কোনো মানসিক সমস্যা বলেও তাঁরা মনে করেন না, কারণ রোগটিকে সম্পূর্ণ শারীরিক বলেই ধারণা করেন তাঁরা। অথচ এ ধরনের রোগীর মানসিক চিকিৎসা, বিশেষত: সাইকোথেরাপি প্রয়োজন। তবে অনেক সময় ওষুধ সেবনেরও প্রয়োজন হতে পারে। রোগ ও স্বাস্থ্য সম্পর্কে সচেতনতা ভালো, কিন্তু তা যেন মানসিক সমস্যার পর্যায়ে চলে না যায়, সেদিকে লক্ষ রাখা উচিত।

No comments:

Post a comment