Sunday, 11 November 2012

আপনি ডিপ্রেশনে কি ভুগছেন?

মন খারাপ - শব্দটি নিয়ে বেশি কিছু বলার নাই । এখানের সবারই কমবেশি মন খারাপ হয়। দিনের মধ্যে সবসময় ফুরফুরে মেজাজ থাকে না অনেকের । কয়েকটা দিন হয়তো খুব খারাপ কাটে। মানুষ মাত্রই তার একটা মন থাকবে। সেই মন আনন্দ পেলে হাসবে , কষ্ট পেলে কাদবে । হাসি কান্না , ভালো লাগা ,না লাগা এটা নিয়েই তো জীবন । এটা স্বাভাবিক।

'মন খারাপ' জিনিসটা যদি বেশ লম্বা সময়ের জন্য , কিংবা পর পর খুব অল্প সময়ের ব্যবধানে বার বার হয় , এবং এটি দৈনন্দিন কাজকর্মকে ব্যাহত করে তাহলে সেটাকে বলা হয় ডিপ্রেশন, বা বিষণ্ণতা। এটি অল্পও হতে পারে , আবার অনেক বড় আকারের ও হতে পারে। যেহেতু এটা এক ধরনের অসামঞ্জস্যতা , তাই এটা সম্পর্কে পরিষ্কার ধারনা রাখা জরুরী ।





বড় ধরনের ডিপ্রেশনে ব্যক্তির মানসিক অবস্থা সবচেয়ে খারাপ থাকে সাধারনত সকালের দিকে , ঘুম থেকে উঠার পরে । এ ধরনের অবস্থায় অনেকের ডিপ্রেশনের সাথে সাথে কারন ছাড়াই আরও যেরকম কিছু জিনিস মনে হতে পারে তা হল -

* নিজেকে অযোগ্য মনে হওয়া ।
* নিজেকে দোষী মনে হওয়া ।
*দারিদ্রতা।
*নিজেকে পাপী মনে হওয়া ।
* জগত সংসার আসলে কিছুইনা ,এটা একটা মিথ্যা ,এরকম মনে হওয়া ।

বড় ধরনের ডিপ্রেশনের রোগী খুব নিশ্চুপ হয়ে থাকে , তবে কারো কারো ক্ষেত্রে উদ্ভ্রান্ত হওয়ার ঘটনাও পরিলক্ষিত হয় । 

আসুন এবার জেনে নেই কিভাবে বুঝবো ডিপ্রেশন কোন মাত্রায় আছে। প্রশ্নের উত্তরগুলো মিলিয়ে নিন ।

* আগে যে কাজ গুলো করতেন কিংবা আগে যা করতে ভাল লাগতো,এখনো কি সেই কাজে আনন্দ পান কিনা ।

*আগের থেকে এখন বেশি দুর্বল লাগে কিনা ।

*খুব সকালে ,সূর্য উঠার আগে ঘুম ভাঙে কিনা । 

* খাওয়াদাওয়াতে রুচি আছে কিনা বা ওজন কমেছে কিনা ।

* নিজেকে অযোগ্য , দোষী ,পাপী বলে বিশ্বাস করেন কিনা ।

* নিজেই কি নিজের ভাবমূর্তি নষ্ট করতে চান কিনা ।

*কথা বলতে জড়তা এসেছে কিনা ,নিশ্চুপ থাকতে ভালো লাগে কিনা ।

*রাতের কোন সময় খুব উত্তেজিত বা উদ্ভ্রান্ত লাগে কিনা , দুঃস্বপ্ন দেখেন কিনা ।

এগুলোর উত্তর যদি অধিকাংশই হ্যা হয় ,তাহলে এটা ডিপ্রেশনের সবচেয়ে বাজে অবস্থা । 

সাধারনত ডিপ্রেশনের রোগীদের ঘুম খুব সকালে ,সূর্য উঠার আগেই ভেঙে যায় , এবং আর আসতে চায়না । তবে এটার ব্যাতিক্রম আছে । মজার ব্যাপার হল কিছু কিছু রোগীদের ঘুম অনেক বেড়ে যায় এবং ঘুম স্বাভাবিক সময়ে না ভেঙে অনেক দেরীতে ভাঙে ।

অনেক সময় এরকম ডিপ্রেশন থেকে আত্মহত্যার চিন্তাও চলে আসতে পারে। যদি তাই হয় , তবে অতিসত্বর তার জন্য কাউন্সেলিং জরুরী । 



No comments:

Post a comment