Thursday, 12 September 2013

প্যানিক অ্যাটাক


মিনা মোবাইল ফোনে তার মায়ের সঙ্গে কথা বলছিলেন। ঠিক এ সময় তার মধ্যে আকস্মিক ভীতির শুরু। মিনা বলেন, হঠাৎ করেই আমার মনে হচ্ছিল আমার দম বন্ধ হয়ে আসছে। আমি শ্বাস নিতে পারছিলাম না। আমার মনে হচ্ছিল, এই বুঝি শেষ, আমি মারা যাচ্ছি। এ সময় সঙ্গে থাকা এক বন্ধু আমাকে শুইয়ে দিয়ে স্বাভাবিক করে। আমি প্রচণ্ড ভয় পেয়েছিলাম।

আমি জানি না আসলে কেন এমন হয়েছিল। 
এরপর আরও অনেকবার এরকম ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতা হয়েছিল তার।
চিকিৎসাবিজ্ঞানের ভাষায় একে বলে প্যানিক অ্যাটাক বা আকস্মিক ভীতি। যুক্তরাজ্যের ন্যাশনাল হেলথ রিসার্চের (এনএইচআর) মতে, গত ১২ বছরে আকস্মিক ভয়ে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৯ শতাংশ বেড়েছে। তবে এর জন্য সম্প্রতি অর্থনৈতিক মন্দাজনিত হতাশাও দায়ী বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। তবে অনেকেই মনে করেন, প্রাত্যহিক মানসিক চাপের কারণেই এ সমস্যা দেখা দেয়। বিশেষজ্ঞরা জানান, এ রোগে আক্রান্ত অনেকেই চিকিৎসা নেওয়ার আগে বিভিন্নভাবে মাদকদ্রব্যের প্রতি আসক্ত হয়ে পড়ে। এ বিষয়ে মনোচিকিৎসক ড. জোয়ান্না মনক্রিয়েফ বলেন, এটা সত্য প্রথম প্রথম মাদক গ্রহণ করলে সাময়িক উপকার হয়; কিন্তু পরে এটা তাদের ধীরে ধীরে ক্ষয় করে। এখন পর্যন্ত এ আকস্মিক ভীতিতে আক্রান্ত হওয়ার সঠিক কারণ জানা যায়নি; আবিষ্কৃত হয়নি যথাযথ চিকিৎসাও। তবে আকস্মিক ভয় প্রতিরোধে সাইকোথেরাপী সবচেয়ে ভালো বলে মনে করেন মনোবিজ্ঞানীরা। 

সমকাল 

No comments:

Post a comment