Thursday, 29 October 2015

স্বার্থপর


স্বার্থপরতা বর্তমানে সমাজে একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।
মায়ের সাথে সন্তানের স্বার্থপরতা, সন্তানের সাথে মায়ের স্বার্থপরতা, স্বামীর সাথে স্ত্রীর স্বার্থপরতা, স্ত্রীর সাথে স্বামীর স্বার্থপরতা, ভাই-বোনের স্বার্থপরতাই মানুষের জীবনে কঠিন ভাবে ছায়া ফেলে। স্বার্থপর মানুষের কোন ধর্ম নেই। তাদের মা-বাবা, ছেলে-মেয়ে, স্বামী- স্ত্রী, সন্তান, বিবেক কোন কিছুই নেই ! তাদের কাছে নিজের স্বার্থটাই বড় কথা। এই স্বার্থপরতার কারণে পৃথিবীতে কত পরিবার এবং সম্পর্ক ধ্বংস হয়ে গেছে তার কোন হিসাব কারো কাছেই নাই !
স্বার্থপর মানুষ আমাদের সমাজে প্রচুর আছে, যারা নাকি ভদ্রলোকের মুখোশ পড়ে আমার-আপনার আশেপাশেই ঘুরছে এবং জ্ঞান ও উপদেশ বিতরণ করছে! আর কোন ভাবে যদি এই স্বার্থপরতার বিষয় সামনে আসে,তখন তারা আজগুবি সব যুক্তি উত্থাপন করে থাকে। লক্ষ করা গেছে যে, এই সমস্ত স্বার্থপর মানুষেরা ঘরের বাইরের মানুষের
সাথে প্রচন্ড রকমের ভদ্রলোকের এবং ভদ্রতার পরিচয় দিয়ে থাকেন। যা তাদের দ্বিমুখী চরিত্র এবং অভিনয় শিল্পী্দের মতোই নিপুণ।
"নার্সিসিসটিক পারসোনালিটি"র কথা আমরা অনেকেই হয়তো শুনে থাকবো। এরা মূলত স্বার্থপর। এরা শুধু নিজেকে ভালোবাসে, অন্যের চাওয়া পাওয়ার থেকে সর্বদা নিজের চাওয়া পাওয়াকে গুরুত্ব দেয়। আপনি যদি ক্রমাগতভাবে এরকম স্বার্থপর, আত্নকেন্দ্রিক মানুষের সাথে ওঠাবসা করতে থাকেন তবে আপনার জীবন হয়ে উঠবে শোচনীয় এবং দুর্বিষহ।
কোন বৈশিষ্ট্য থাকলে একজন মানুষকে স্বার্থপর বলা যেতে পারে?
স্বার্থপর তারাই যারা সর্বদা নিজেকে নিয়ে ব্যস্ত থাকে এবং অন্যের চাহিদা, অনুভূতির কথা যারা বিবেচনা করেনা এবং ছলে, বলে কৌশলে নিজের স্বার্থ উদ্ধার করেন।
একজন স্বার্থপর মানুষের কোন ডাক্তার বা ঔষধে তার এই "স্বার্থপরতা" ঠিক করা যায় না, যতক্ষণ পর্যন্ত সে নিজেকে নিজে ঠিক না করে ! এরপরে থেরাপি দিয়ে সাহায্য করা যেতে পারে।

https://www.facebook.com/Psychobd/

No comments:

Post a comment