Monday, 21 December 2020

এই ডিজিটাল যুগেও পুকুরে চুবিয়ে মানসিক রোগীদের চিকিৎসা !

কুমিল্লায় চিকিৎসার নামে মানসিক রোগীদের পুকুরে চুবানোর ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় বাড়ির মালিককে ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় আটক রোগীদের স্ব-স্ব পরিবারের কাছে হস্তান্তরের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

রবিবার বিকালে কুমিল্লার আদর্শ সদর উপজেলার দুর্গাপুর ইউপির মধ্যপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, গোপন সূত্রে প্রাপ্ত সংবাদের ভিত্তিতে জেলা প্রশাসন ও জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের যৌথ ভ্রাম্যমাণ আদালত ওই বাড়িতে অভিযান চালায়। বাড়ির মালিকের বিরুদ্ধে কোনো সরকারি অনুমোদন ছাড়াই মানসিক চিকিৎসার নামে রোগীদের শারীরিক নির্যাতন করা, দুর্গন্ধময় পরিবেশে রোগীদের শিকল বেঁধে আটক রাখা, রোগীদের শিকল পরিহিত অবস্থায় পুকুরে চুবানোসহ নানা অভিযোগ করে এলাকাবাসী। এ সময় সুস্থ রোগীকেও অসুস্থ হিসেবে আটকে নিম্নমানের খাদ্য সরবরাহ, অননুমোদিত ওষুধ রাখা ও অনুমোদন ছাড়াই প্রতিষ্ঠান চালানোর দায়ে বাড়ির মালিককে অভিযুক্ত করা হয়।
জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাজহারুল ইসলাম এ রায় প্রদান করেন। এ সময় প্রসিকিউটর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন কুমিল্লা সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ডা. সৌমেন রায়।
কুমিল্লার সিভিল সার্জন ডা. মো. নিয়াতুজ্জামান জানান, আমরা দুষ্টু লোকদের আইনের আওতায় এনেছি। এ যুগে এসে একজন অভিভাবকের এ ধরনের ভুল করা দুঃখজনক। এ ব্যাপারে সামাজিক সচেতনতা গড়ে তোলা জরুরি। আপনি যদি রোগী ভর্তি না করান, তারা রোগী পাবে কোথায়?
শীর্ষনিউজ

No comments:

Post a comment