Saturday, 10 May 2014

বাংলাদেশে সংক্রামক রোগঃ এবার এলো গুম "সামাজিক ট্রমা"

মানুষ সামাজিক জীব।

পৃথিবীর প্রতিটি দেশ এবং সমাজ কিছু নিয়ম কানুন মেনে চলে। আমরাও তার ব্যতিক্রম নই। 

অতীতে এক সময় দেখা গেছে পায়ের রগ কাটাকাটি, কিংবা কুপিয়ে মারা। এরপর বস্তায় বা সুটকেসে ভরে লাশ পাওয়া যেত। তারপর কথায় কথায় পটকা ফোটানোর চল এসেছে। এরপর আত্মহত্যা এবং এক রশিতে আত্মহত্যা। তারপর এলো মুক্তিপন বানিজ্য।এখন চলছে

গুমের যুগ।

অতীতের ঘটনা পর্যালোচনা করে দেখা গেছে যে, এইগুলি অনেকটা সংক্রামক রোগের মতই সমাজে ছড়িয়ে পড়ে। কিছুদিন ধারাবাহিকতা বজায় রেখে চলে, আবার আরেকটা এসে পুরানোটার জায়গা দখল করে নেয়। যেন অনেকটা ফ্যাশনের মতো।


দেশে এখন 'সামাজিক ট্রমা' চলছে। একের পর এক অপহরণ, হত্যা ও গুমের ঘটনায় সবার মধ্যে এক ধরনের চাপা আতঙ্ক ও নিরাপত্তাহীনতা কাজ করছে। পেশাদার অপরাধীদের মধ্যে এখন অনেকটা গা-ছাড়া ভাব। এর কারণ, নানা ধরনের অপরাধে তাদের সহযোগিতা করছে খোদ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, প্রভাবশালী রাজনীতিবিদ ও অর্থশালী ব্যক্তিরা। মূলত লোভ ও সহজে অবৈধভাবে অর্থ উপার্জনের মোহে তারা অপরাধীদের প্রশ্রয় দিচ্ছেন। এ অভিমত দেশের সমাজবিজ্ঞানী, মনোবিজ্ঞানী ও বিশিষ্টজনদের। তাদের মতে, অপরাধীদের ধরাই যাদের কাজ (আইনশৃঙ্খলা বাহিনী) তারাই এখন অপরাধ ঘটাতে অপরাধীদের সাহায্য করছেন! এ অবস্থায় সরকারকে অবস্থার উন্নতিতে যত দ্রুত সম্ভব প্রকৃত অপরাধীদের বিচারের আওতায় আনতে হবে। একই সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ওপরও নজরদারি বাড়াতে হবে। 

সমাজের এই দুষ্ট ক্ষত সারাতে হলে রাষ্ট্রের ভূমিকা অপরিসীম। এখনই কঠোর আইন করে এই‌‍ সমস্ত অপরাধীদের দমন করা না গেলে আমাদের ভবিষৎ প্রজন্মদের পতন বসে বসে দেখা ছাড়া আর কোন উপায় থাকবে না।

No comments:

Post a comment